মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শাখার নামঃরাজস্ব , এসএ
নাগরিক সেবা

১) সার্কুলার গার্ড ফাইল সংরক্ষণ।

২) কানুনগো/ সার্ভেয়ার/ ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা/ ইউনিয়ন ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তাগণের

    সংস্থাপন বিষয়াদী।

৩) ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারীগণের সংস্থাপন সংক্রান্ত

৪) বাজেট সংক্রান্ত

৫) সায়রাত মহাল সংক্রান্ত

৬) ভূমি উন্নয়ন কর নির্ধারণ/আদায় সংক্রান্ত

৭) অডিট আপত্তি সংক্রান্ত

৮) উপজেলা/ইউনিয়ন ভূমি অফিস মেরামত সংক্রান্ত

৯) জরিপ বিভাগের সাথে পত্রালাপ।

১০) সীমানা নির্ধারণ / এডি লাইন

১১) রেকর্ড সংশোধন সংক্রান্ত

১২) হাট-বাজার স্থাপন/ পেরিফেরী সংক্রান্ত / একসনা দোকান লাইসেন্স প্রদান

১৩) ওয়াকফ / দেবোত্তোর সম্পত্তি সংক্রান্ত

১৪) কৃষি / অকৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত সংক্রান্ত


শাখার নামঃ
নাগরিক সেবা

০১। জনসাধারণকে অর্পিত সম্পত্তির বিষয়ে সকল ধরণে পরিপত্র এবং বিভিন্ন পরামর্শ দেয়া হয়।

০২। অর্পিত সম্পত্তির নামজারী ও জমাখারিজ সংক্রান্ত কার্যক্রমে উপদেশ ও পরামর্শ দেয়া হয়।

০৩। লীজমানি আদায়ে উৎসাহ প্রদান

০৪। লীজমানি আদায়ে আরো উদ্যোগ গ্রগণে আগ্রহ সৃষ্টির মনোভাব বৃদ্ধি করা ।

 

সিটিজেন চার্টার

 

১। পোষ্টাল , রেভিনিউ , পোষ্টেজ ষ্ট্যাম্প, স্বারক ডাক টিকেট, ইনভেলাপ ও পোষ্টকার্ড

                  প্রতি সোমবার (প্রয়োজনে) চাঁদপুর জেলা পোষ্ট মাষ্টার কর্তৃক চালানের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংকে ট্রেজারী শাখায় টাকা জমা   

                  দেয়া হয়। টাকা জমা দেয়ার পরের দিন ব্যাংক থেকে চালানের মূলে কপিসহ স্ক্রল পাওয়া যায়। অতঃপর স্ক্রুলের সাথে যথাযথ 

                  যাচাই বাছাই শেষে সঠিক পাওয়া গেলে ট্রেজারীর ডবল লক রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ কতরঃ ডবল লক হতে স্ট্যাম্প বাহির করিয়া

                  যথাক্রমে মঙ্গলবার সংশ্লিষ্টদের মধ্যে জমাকৃত টাকার স্ট্যাম্প সরবরাহ করা হয়।

                

 2) নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পঃ

2.1) নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্সঃ

        (ক) প্রতি সোমবার লাইসেন্স ধারী ভেন্ডারগণ কর্তৃক চালানের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক ট্রেজারী শাখায় সরকার কর্তৃক ঘোষিত নিদিষ্ট কোডে টাকা জমা দেয়া হয়। টাকা জমা দেয়ার পরের দিন যথাক্রেমে ব্যাংক হতে চালানের মূলকপিসহ স্ক্রুল পাওয়ার পর যথাযথ যািচাই-বাছাইয়ে সঠিক পাওয়া গেলে ট্রেজারী ডবল লক রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ করতঃ ডবল লক হইতে স্ট্যাম্স বাহির করিয়া সংশ্লিস্ট ভেন্ডারদের মধ্যে যথাক্রমে মঙ্গলবার ও বৃহঃস্পতি বিতরন করা হয়।

2.2) জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পঃ

খ)         প্রতি সোমবার সংশ্লিস্ট ভেণ্ডার/প্রতিষ্ঠান কর্তৃক চালানের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক ট্রেজারী শাখায় টাকা জমা দেয়া হয়। টাকা জমা দেয়ার পরের দিন ব্যাংক হতে চালানের মূল কপিসহ স্ক্রুল পাওয়া যায়। স্ক্রুল এর সাথে যথাযথ যাচাই-বাছাইয়ের সঠিক পাওয়া গেলে ট্রেজারীর ডবল লক রেজিস্টারে লিপিবিদ্ধ করতঃ ডবল লক হতে স্ট্যাম্প বাহির করিয়া যথারীতি মঙ্গলবার সংশ্লিস্টদের মধ্যে স্ট্যাম্প সরবরাহ করা হয়।

 

3) পরীক্ষার প্রশ্নপত্র গ্রহণ ও সরবরাহঃ

খ)              যথাসময়ে সংশ্লিস্ট পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিজি প্রেস থেকে ম্যাজিস্ট্রেট ও পাশ্বেল যোগে প্রাপ্ত পরীক্ষার গোপনীয় কাগজপত্র ট্রেজারীর ডবল থেকে সংরক্ষন করা হয়। অতঃপর পরীক্ষার রুটিন অনুয়াযী প্রতিদিন যথাসময়ে স্ব স্ব পরীক্ষার প্রশ্ন স্ব স্ব পরীক্ষা পরিচালনা কর্তৃপক্ষের বরাবরে সরবরাহ করা হয়।

 

4) বিদেশ থেকে আসা আমমোক্তানামায় বিশেষ আঠাল স্ট্যাম্প লাগিয়ে তা বাতিল ও কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষরপূর্বক সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়।

 

5) ভেন্ডারগনের বিক্রয় খাতা ইস্যু, জমা ও জমা নিয়ে সংরক্ষনের ব্যবস্থা করা হয়।

 

6) স্ট্যাম্প রিফান্ড শাখা হতে রিফান্ড সংক্রান্ত চাহিদা তথ্যাদি প্রেরণের ব্যবস্থা হয়।

 

7) ইহা ছাড়াও জেলা প্রশাসক মহোদয়ের আদেশক্রমে অন্যান্য মূল্যবান সামগ্রী ট্রেজারীতে সংরক্ষন করা হয়।

১।  যে সকল সেবা দেওয়া হয়

ক) লােইব্রেরী শাখায় সংরক্ষিত আইন , ধর্মীয় এবং অন্যান্য বই সর্মহ চাহিদামাত্র ইস্যু করা হয়।

খ) সংরক্ষিত গেজেট চাহিদা অনুযারয়ী দেখানো হয়।

গ) লাইব্রেরীতে সংরক্থিত ডি. এল. আর এবং ল রিপোট চাহিদা অনুযায়ী ইস্যু করা হয় ।

ঘ) লাইব্রেরী সংক্রান্ত ভিবিন্ন আদেশ , নির্দেশ পত্র ইত্যাদি যথাযত ভাবে সংরক্ষন ও কার্যক্রম গ্রহন করা হয়।

ঙ) অত্রফিসে এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সমূহে স্টেশনারী মালামাল সরবরাহ করা হয় ।

০১।  প্রবাসী কল্যাণ শাখায় প্রবাসীদের বিভিন্ন অভিযোগ নিষ্পত্তি করা হয়। এসব অভিযোগ বাংলাদেশ দূতাবাস এর মাধ্যমে বিভিন্ন দেশ হতে প্রবাসী বাংলাদেশীরা প্রেরণ করে থাকেন।

০২। এই শাখায় ১৮ই ডিসেম্বর তারিখে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালন করা হয়। এই দিবসে চাঁদপুর জেলার সকল প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রদানকারী তিন জনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এছাড়া এই দিবসে সকল গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, এনজিও, স্কুল, কলেজ এবং প্রবাসী বাংলাদেশীদের সমন্বয়ে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

০৩। এই শাখায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের লাস আনার বিষয়ে সহযোগীতা করে থাকে।

০৪। প্রবাসী বাংলাদেশীদের সন্তানদের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোটা সংরক্ষেণের বিষয়ে এবং উপবৃত্তি  প্রদানের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়্।

এছাড়া প্রবাসীদের রেজিস্ট্রেশনসহ বিভিন্ন সহযোগিতা করা হয়।

শিক্ষা শাখার সিটিজেন চার্টাার

 

১। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা ঃ

      ১। বেসরকারি মাধ্যামিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং মাদ্রাসা গভনিং বডি, ম্যানিজিং কমিটির মাধ্যামে পারিচালিত হয়। মাননীয় সংসদ সদস্যগন তাঁর উপজেলার ৪ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হবেন। প্রাতিষ্ঠানের প্রধানের আবেদনের পেক্ষিতে তাঁর সুপারিশের আবশিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সভাপতি নিযুক্ত হবে। জেলা সদরের সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সভাপতি জেলা প্রশাসক বা তাঁর মনোনীত প্রতিনিধি হিসাবে আতিরিক্ত জেলা প্রশাসকগন এবং উপজেলা পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারগন। ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদ বা কার্যকাল ২বৎসর। জেলা সদরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির এবং জেলা উচ্চ মাধ্যামিক পর্যায়ে কলেজ/ মাদ্রাসার গভনিং বডির নির্বাচনের জন্য জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা পর্যায়ে ম্যনেজিং কমিটির নির্বাচনের জন্য উপজেলা অফিসারগন প্রিজা্ইডিং অফিসার নিয়োগ প্রদান করবেন ।

২। পরীক্ষা কেন্দ্রের তথ্য ঃ

                        ২। জেলার সকল পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা এবং মাধ্যামিক /উচ্চমাধ্যামিক/ মাদ্রাসার তালিকা এ শাখায় সংরক্ষিত হয়।

৩। পরীক্ষা পরিচালনা ঃ

                        ৩। যবতীয় পাবলিখ পরীক্ষা ( ৫ম শ্রেনীর সমাপনী পরীক্ষা জুনিয়র স্কুল সার্টিফেকেট পরীক্ষা (জে এসসি ), জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জে ডি সি), এস এসসি , দাখিল এসএসসি  (ভোকেশনাল) এইসএসসি , আলিম , এইসএসসি (ভোকেশনাল), ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা), ফাজিল , কামিল, স্নাতক, অনার্স, স্নাতকোত্তর, এইসএসসি (বাউবি) এসইসএসসি (বাউবি), হোমিও প্যাথি, ইউনানী, ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষা এবং ভর্তি পরীক্ষা ইত্যাদি ) তত্ত্বাবধান বোর্ড/বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ অনুসারে প্রশ্নপত্র আনায়ন করে বিতরন করা হয়।

৪। পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশঃ

                        ৪। বোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের জারীকৃত পত্রানুসারে পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের ব্যবস্থা নেয়া হয় ।

৫। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীর বিরুদ্ধে প্রাপ্ত বিভিন্ন অভিযোগ নিষ্পত্তি ঃ

                         ৫। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কর্মচারীর বিরদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়ার পর বিধি অনুসারে ব্যবস্থা  নেয়া হয়।

১. সকল প্রকার অনুষ্ঠান আয়োজন।

২. অতিথি আপ্যায়ন ও থাকার ব্যাবস্থা।

৩. আনুসঙ্গীক সংক্রান্ত।

৪. প্রটোকল সংক্রান্ত।

৫. কেবল লাইসেন্স সংক্রান্ত।

৬. চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীদের বিল-ভাতা সংক্রান্ত।

৭. গাড়ীর জ্বালানী সংক্রান্ত।

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

  জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, চাঁদপুর।       

 নাগরিক সেবা (সিটিজেন চার্টার)

ব্যবসা-বাণিজ্য শাখা

www.chandpur.gov.bd

 

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ব্যবসা-বানিজ্য শাখা হতে নিম্নোক্ত লাইসেন্স সমূহ বা লাইসেন্স প্রাপ্তির জন্য অনাপত্তি সনদপত্র প্রদান করা হয়ে থাকে। 

 

ক্রমিক নং

আইটেম

নতুন লাইসেন্স ফি

মূল্য সংযোজন কর

নবায়ন ফি

মূল্য সংযোজন কর

লাইসেন্স প্রদানের জন্য সময়

মন্তব্য

০১.

কাপড়

(পাইকারী)

১,০০০/-

১৫০/-

৫০০/-

৭৫/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০২.

কাপড় (খুচরা)

১,০০০/-

১৫০/-

৫০০/-

৭৫

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৩.

লৌহ ও ইস্পাত

৩,০০০/-

৪৫০/-

১,৫০০/-

২২৫/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৪.

সিমেন্ট

১,৫০০/-

২২৫/-

৭৫০/-

১১৩/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৫.

শিশু খাদ্য দ্রব্য

৩০০/-

৪৫/-

১৫০/-

২৩/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৬.

সুতা (পাইকারী)

-

-

-

-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৭.

সুতা

(খুচরা)

-

-

-

-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৮.

জুয়েলারী

৩,০০০/-

৪৫০/-

১,৫০০/-

২২৫/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

০৯.

জুয়েলারী (কারিগরি)

১,০০০/-

১৫০/-

৫০০/-

৭৫/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে ০৩ দিন

 

১০.

ইটভাটা

৫,০০০/-

৭৫০/-

৫,০০০/-

৭৫০/-

সঠিক আবেদনের ক্ষেত্রে কমপক্ষে ০৭ দিন

 

 

লাইসেন্স প্রাপ্তির পদ্ধতিঃ

 

০১। ইটভাটার অনুকূলে পরিবেশ ছাড়পত্রের আলোকে ও লাইসেন্স ফি চালানের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংকের ট্রেজারী শাখায় জমা প্রদান পূর্বক সংশ্লিষ্ট আবেদন ফরমে ইটভাটার তথ্যাবলী সংযোজনক্রমে আবেদন করতে হবে। আবেদন করার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিম্নে দেয়া হলো।

(ক) ট্রেড লাইসেন্সের সত্যায়িত কপি।

(খ) মালিকানা কাগজপত্র/ভাড়াটিয়া চুক্তিনামা সত্যায়িত কপি।

(গ) ব্যাংক সলভেন্সি সত্যায়িত কপি।

(ঘ) হালনাগাদ আয়কর সনদ সত্যায়িত কপি।

(ঙ) জাতীয়তা সনদ সত্যায়িত কপি।

(চ) ৩০০/- (তিনশত) টাকার চুক্তিনামাসহ জেলা প্রশাসক মহোদয়ের বরাবরে আবেদন করতে হয়। উক্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে লাইসেন্স প্রদানের বিষয়ে জেলা প্রশাসক কর্তৃক তদন্তক্রমে প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য (উপজেলা তদন্ত কমিটি) উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর আবেদনের স্ব-পক্ষে সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র প্রেরণ করেন। উপজেলা তদন্ত কমিটি কর্তৃক প্রদত্ত তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে জেলা প্রশাসক কর্তৃক ইটভাটার লাইসেন্স ইস্যু করা হয়। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে উক্ত লাইসেন্স প্রদান করতে কমপক্ষে ৭ (সাত) দিন সময় লাগবে।

০২। ডিলিং লাইসেন্সঃ

            লৌহজাত/সিমেন্ট/কাপড়/সুতা/তুলা/স্বর্ণ কারিগরি/শিশুখাদ্যদ্রব্য/সিগারেট/খুচরা ও পাইকারী ব্যবসায়ীদের ডিলিং লাইসেন্স এ কার্যালয় থেকে প্রদান করা হয়। ডিলিং লাইসেন্স প্রাপ্তির আবেদন করার জন্য আবেদনের সাথে সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র নিম্নরুপঃ

(ক) ট্রেড লাইসেন্সের সত্যায়িত কপি।

(খ) মালিকানা কাগজপত্র/ভাড়াটিয়া চুক্তিনামা সত্যায়িত কপি।

(গ) ব্যাংক সলভেন্সি সত্যায়িত কপি।

(ঘ) হালনাগাদ আয়কর সনদ সত্যায়িত কপি।

 (ঙ) জাতীয়তা সনদ সত্যায়িত কপিসহ এ কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে নির্ধারিত লাইসেন্স ফি সোনালী ব্যাংক ট্রেজারী শাখা, চাঁদপুর জমা দিয়ে ডিলিং লাইসেন্স এর জন্য আবেদন করতে হবে। ক্যাটাগরী অনুযায়ী ডিলিং লাইসেন্স ফি‘র টাকা সোনালী ব্যাংক ট্রেজারী শাখায় জমা প্রদান পূর্বক সংশ্লিষ্ট আবেদন ফরমে তথ্যাবলী সংযোজনক্রমে জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করতে হবে। উক্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে লাইসেন্স প্রদান করা হবে। ডিলিং লাইসেন্স নবায়ন করার জন্য ক্যাটাগরি অনুযায়ী নির্ধারিত লাইসেন্স ফি সোনালী ব্যাংক ট্রেজারী শাখায় জমা প্রদান পূর্বক সংশ্লিষ্ট আবেদন ফরমে তথ্যাবলী সংযোজনক্রমে জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করতে হয়। উক্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে লাইসেন্স নবায়ন করা হয়।

০৩। সিএনজি/পেট্রোল পাম্প/দ্বিতীয় বা তৃতীয় শ্রেণীর পেট্রোলিয়াম জাত দ্রব্যের বিক্রয়ের জন্য অনাপত্তিপত্রঃ

উল্লেখিত পণ্যের বিক্রয়ের নিমিত্তে অনাপত্তি সনদ পাওয়ার জন্য আবেদন করতে যা প্রয়োজন তা নিম্নে দেয়া হলো।

(ক) ট্রেড লাইসেন্সের সত্যায়িত কপি।

(খ) মালিকানা কাগজপত্র/ভাড়াটিয়া চুক্তিনামা সত্যায়িত কপি।

(গ) ব্যাংক সলভেন্সি সত্যায়িত কপি।

(ঘ) হালনাগাদ আয়কর সনদ সত্যায়িত কপি।

(ঙ) জাতীয়তা সনদ সত্যায়িত কপি।

(চ) লে আউট প্যালন

(ছ) ডি ফরম

(জ) অঙ্গীকারানামা

(ঝ) পাসপোর্ট সাইজের ছবিসহ কাগজপত্র প্রদান সাপেক্ষে বিভিন্ন বিভাগ কর্তৃক তদন্ত করানো হয়। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে সর্বোচ্চ ৭ (সাত) কার্যদিবসের মধ্যে অনাপত্তি (এনওসি) প্রদান করা হয়ে থাকে।

০৪। ব্যবসা-বাণিজ্য শাখা/ওয়েব সাইট হতে উল্লেখিত লাইসেন্স সমূহের জন্য ভিন্ন ভিন্ন নির্ধারিত ফরম সংগ্রহ করতে হয়। আগ্রহী আবেদনকারীগণ তাদের ব্যবসায়ের ধরণ অনুযায়ী নির্ধারিত ফরমে অত্রাফিসে লাইসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

০৫। আবেদন পাওয়ার পরে ক্ষেত্র বিশেষ আবেদনগুলো সরেজমিন তদন্তের জন্য কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়ে থাকে।

০৬। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর সবের্বচ্চ ৭ (সাত) কার্যদিবসের মধ্যে ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে নির্ধারিত লাইসেন্স  

      ফি জমাকরণ সাপেক্ষে লাইসেন্স ইস্যু করা হয়ে থাকে।

০৭। উপরোক্ত বিষয়ের ক্ষেত্রে কোন প্রকার অভিযোগ/পরামর্শ থাকলে ব্যবসা-বাণিজ্য শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার

      সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা হলো।

০৮। কোন প্রকার অস্পষ্টতা থাকলে আপনি দয়া করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার সুপরামর্শ গ্রহণ করুন।

০৯। এ অফিসের কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ আপনার দ্রুত সেবা প্রদানের জন্য নিয়োজিত। দয়া করে কোন   

      মধ্যস্বত্বভোগী/দালালের খপ্পরে পড়বেন না।

 

 

 

 

 

                                                                                          সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

ব্যবসা-বাণিজ্য শাখা

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, চাঁদপুর।

১. রাজস্ব মামলা সংক্রান্ত কার্যক্রম,

২. দেওয়ানী মামলা সংক্রান্ত কার্যক্রম,

৩. ভেন্ডার লাইসেন্স আবেদনকারীর নামে প্রদাণ ও নবায়ন করা,

৪. পাওয়ার অফ এ্যটর্ণি সংক্রান্ত কার্যক্রম,

৫. বিনিময় মামলা সংক্রান্ত কার্যক্রম।

০১ ।    সরকারী পাওনা আদায়ের নিমিত্তে সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখার উদ্দেশ্যে এ শাখার 

          কার্যক্রম সরকারী দাবী আদায় আইন ১৯১৩ (১৯১৩ সনের ব্যাঙ্গল এ্যাক্ট নং-৩) দ্বারা পরিচালিত হয়ে থাকে।

 

০২ ।  সেবা গ্রহিতাঃ-

        বিভিন্ন প্রত্যাশী সংস্থা

 

০৩ ।   সরকারী পাওনা বলতে নিম্নোক্ত পাওনা সমূহকে বুঝায়ঃ-

(ক)     আবগারী কর

(খ)     রেজিষ্ট্রেশন ফিস

(গ)     জরিমানা

(ঘ)     প্রবেটের উপর র্কোট ফি

(ঙ)     আয়কর

(চ)     প্রমোদ কর

(ছ)     বন আইন মোতাবেক সরকারী পাওনা অর্থ

(জ)    জরিপ আইন অনুসারে জরিমানা

(ঝ)    পৌর কর

(ঞ)    খেলাপী ঋণ

(ট)     বকেয়া বিদ্যুৎ বিল

(ঠ)     যে সকল পাওনা অন্য কোন আইনে সরকারী পাওনা আদায় আইন ১৯১৩ এর আওতায় আদায় যোগ্য 

         বলে ঘোষনা করা হয়ে থাকে।

 

০৪ ।  সার্টিফিকেট মামলার বিপরীতে নগদ অর্থ সার্টিফিকেট আদালত কর্তৃক গ্রহণ করা হয়না।

 

০৫ ।  সার্টিফিকেট মামলায় ইস্যুকৃত প্রসেস সমূহ সংশ্লিষ্ট নির্বাহী অফিস এবং নেজারত শাখার জারীকারকের

         মাধ্যমে জারী করা হয়ে থাকে।

 

০৬ ।  খাতকগণের নামীয় গ্রেফতারী পরওয়ানা সমূহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ কর্তৃক তামিল করা হয়ে থাকে।

 

০৭ ।  জরুরী যোগাযোগঃ-

        জেনারেল সার্টিফিকেট অফিসার এর সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় স্থাপিত নাগরিক সেবা কেন্দ্রের (ফ্রন্ট ডেক্স) থেকে জনগনের জন্য সেবা সমূহ

১. জেলা প্রশাসকর কার্যলয়, চাঁদপুর  এ একটি ফ্রন্ট ডেক্স স্থাপনা করা হয়েছে যা “নাগরিক সেবা কেন্দ্র” নামে অবিহিত।

২. না্গরিক সেবা কেন্দ্র জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নিচতলায় অবস্থিত।

৩. নাগরিক সেবা কেন্দ্র থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সকল শাখার কার্যাবলী এবং কোন শাখার কোন কোন কর্মকর্তা ও কর্মচারী কর্মরত আছেন তা জানা যাবে।

৪. কোন শাখা থেকে কোন ধরনের সেবা পাওয়া যায় তা জানা যাবে।

৫. এ সেবা কেন্দ্রের সামনে একটি অভিযোগ বাক্স সংরক্ষিত আছে।

৬. অভিযোগ বাক্সে যে কোন বিষয়ে অভিযো্গ জমা দেওয়া যাবে ।

৭. অভিযোগপত্রে অভিযোগকারীর পূর্ননাম ও পূর্নাঙ্গ ঠিকানা থাকতে হবে।

৮. এ সেবা কেন্দ্র হতে আন্তরিকতার সহিত সেবা প্রদান করা হয়।

৯. এ সেবা কেন্দ্র হতে জেলার সকল নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ের এবং এ অফিসের সকল শাখার টৈলিফোন নম্বর, ইন্টারকম ই-মেইল ঠিকানা যানা যবে।

১০. সরকারী ছুটির দিন ব্যতীত নাগরিক সেবা কেন্দ্র সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

১১. এ সেবা কেন্দ্র থেকে সাধারন বিষয়ে এর মাধ্যমে জনসাধারনের সেবা নিশ্চিত করা হয়।

১২. যে বিষয়ে ফ্রন্ট ডেক্স থেকে সেবা প্রদান সম্ভব হবেনা সে বিষয়ে ও প্রযোজনীয় পরামর্শ পাওয়া যাবে এবং সেবাটি ভিন্ন  সংস্থার আওতাধীন হলেও  সে বিভাগকে সেবা নিশ্চিত করার জন্য প্রযোজনে অনুরোধ করা হবে।

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, চাঁদপুর।

(সংস্থাপন শাখা)

 

সিটিজেন চার্টার (Citizen Charter)

 

১। কালেক্টরেটে কর্মরত কর্মকর্তাগণের মধ্যে কর্মবন্টন।

২। বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারভূক্ত কর্মকর্তাগণের হালনাগাদ তথ্য প্রেরণ।

৩। শিÿানবিস সহকারী কমিশনারদের কর্মকালীন প্রশিÿণ কর্মসূচি প্রণয়ন, তত্ত্বাবধান কার্যক্রম গ্রহণ ও মূল্যায়ন

     প্রতিবেদন প্রেরণ।

৪। কর্মকর্তাগণের চাকুরী স্থায়ীকরণের কার্যক্রম গ্রহণ।

৫। কর্মকর্তাগণের সিনিয়র স্কেলে পদোন্নতি পরীÿার কার্যক্রম গ্রহণ।

৬। কর্মকর্তাগণের অর্ধ-বার্ষিকী বিভাগীয় পরীÿার কার্যক্রম গ্রহণ।

৭। কর্মকর্তাগণের অভ্যমত্মরীণ ও বৈদেশিক প্রশিÿণ এবং উচ্চ শিÿার বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

৮। কর্মকর্তাগণের নৈমিত্তিক ছুটি, অর্জিত ছুটি, শ্রামিত্ম বিনোদন ছুটি ও মাতৃত্বকালীন ছুটি মঞ্জুরীর কার্যক্রম গ্রহণ।

৯। কর্মকর্তাগণের সাধারণ ভবিষ্যৎ তহবিলের অগ্রিম উত্তোলনের বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

১০। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের সাধারণ ভবিষ্যৎ তহবিলের অগ্রিম উত্তোলনের বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

১১। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের নিয়োগ বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

১২। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের পদোন্নতির বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

১৩। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের আমত্ম:জেলা বদলির বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

১৪। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের অর্জিত ছুটি, শ্রামিত্ম বিনোদন ছুটি ও মাতৃত্বজনিত ছুটির বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

১৫। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের চাকুরী স্থায়ীকরণ কার্যক্রম গ্রহণ।

১৬। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের দÿতা সীমা অতিক্রম/টাইম স্কেল মঞ্জুরীর কার্যক্রম গ্রহণ।

১৭। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের নিয়োগ/বদলীর কার্যক্রম গ্রহণ।

১৮। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের এলপিআর, লাম্পগ্রান্ট ও পেনশন মঞ্জুরীর কার্যক্রম গ্রহণ।

১৯। কর্মকর্তাদের বাজেট প্রণয়ন ও প্রেরণ।

২০। সংস্থাপনভূক্ত ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের বাজেট প্রণয়ন ও প্রেরণ।

২১। কর্মকর্তাগণের ও সংস্থাপনভূক্ত ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি প্রস্ত্ততকরণ।

২২। কর্মকর্তাগণের ভ্রমণভাতা ও মোবাইল কোর্ট সম্মানী ভাতা বিল প্রস্ত্ততকরণ।

২৩। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরম্নদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের  বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

২৪। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের বিরম্নদ্ধে বিভাগীয় মামলা সংক্রামত্ম কার্যক্রম গ্রহণ।

২৫। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের গৃহ নির্মাণ অগ্রিম/মোটর সাইকেল অগ্রিমের বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

২৬। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের সিলেকশন গ্রেড ও টাইপ ইনক্রিমেন্ট বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ।

২৭। ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের সমত্মানদের শিÿা বৃত্তি বিষয়ক কার্যক্রম।

২৮। কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পরিসংখ্যান সংরÿণ কার্যক্রম।

২৯। ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন (এসিআর) সংরÿণ।

৩০। নতুন শাখা সৃষ্টির কার্যক্রম গ্রহণ।

৩১। জেলা প্রশাসক সম্মেলন ঢাকা’র কার্যক্রম গ্রহণ।

৩২। বিভাগীয় সমন্বয় সভার কার্যক্রম গ্রহণ।


শাখার নামঃস্থানীয় সরকার
নাগরিক সেবা

নাগিক সেবা বা সিটিজন চাটার

 

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, স্থানীয় সরকার শাখার কর্মপরিকল্পনা (সিটিজেন চার্টার)

 

 

০১।

ইউপি সচিবগণের মাসিক বেতন ভাতা প্রদান।

০১-০৬ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করা হয়।

 

 

০২।

চেয়ারম্যান /সদস্য/দফাদার-মহল্লাদারদের সরকারি

অংশের সম্মানী ও বেতন ভাতাদি প্রদান।

চেকের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণের বরাবরে প্রেরণ করা হয়ে থাকে।

 

০৩।

অবসর প্রাপ্ত ইউপিসচিবগণের আনুতোষিক প্রদান।

অবসর প্রস্তুতিমূলক ছুটি শেষ হওয়ার পর পরই পরিশোধ করা হয়।

 

০৪।

ইউনিয়ন পরিষদের কর ধার্য তালিকা অনুমোদন।

প্রতি পাঁচ বছর পর পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হতে প্রাপ্ত ইউনিয়ন পরিষদের করধার্য তালিকা অনুমোদন ক্রমে ইউনিয়ন পরিষদেপ্রেরণ করা হয়ে থাকে।

 

০৫।

ইউনিয়ন পরিষদের বাজেট অনুমোদন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ হতে প্রাপ্ত ইউনিয়ন পরিষদের আর্থিক বছরের বাজেট অনুমোদন ক্রমে প্রেরণ করা হয়ে থাকে।

 

০৬।

নতুন উপজেলা / ইউনিয়ন সৃষ্টি সংক্রান্ত।

জনগণের চাহিদার ভিওিতে প্রসত্মাব পাওয়া গেলে অনুমোদনের জন্য

মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়ে থাকে।

 

০৭।

চৌকিদার -দফাদারদের পোষাক সরবরাহ সংক্রান্ত।

প্রতি আর্থিক বছরে অর্থ বরাদ্দের সাপেক্ষে সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

 

০৮।

হাট-বাজার ইজারা প্রদান সংক্রান্ত।

আমত্মঃ উপজেলা বাজার / ফেরীঘাট বছর ভিওিক ইজারা প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

০৯।

যৌতুক / বাল্য বিবাহ / জন্ম -নিবন্ধন /স্যানিটেশন

কার্য সম্পাদন।

সরকার কর্তৃক জারীকৃত পরিপত্রের আলোকে যথাসময়ে কার্য সম্পাদন

করা হয়ে থাকে।

                                                         

১০।

ইউনিয়ন পরিষদের ভবন নির্মাণ।

ইউনিয়ন পরিষদ হতে প্রসত্মাব পাওয়ার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার

গণের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সুপারিশক্রমে প্রশাসনিক

অনুমোদনের জন্য যথাসময়ে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়ে থাকে।

 

১১।

ইউপি চেয়ারম্যান / সদস্য / সচিবগণের প্রশিক্ষণ

প্রসঙ্গে।

সময়ে সময়ে প্রাপ্ত পত্রের ভিওিতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

 

 

১২।

দরপত্র বিক্রয় এবং দাখিলের প্রতিবেদন ।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান হতে প্রাপ্ত দরপত্র বিক্রয় এবং অত্র কার্যালয়ে রক্ষিত

দরপত্র বাক্সে প্রাপ্ত দরপত্র সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে প্রেরণ করা হয়।

 

 


শাখার নামঃসার্বিক
নাগরিক সেবা

জেলা প্রশাসক বরাবরে প্রাপ্ত সকল আবেদন/নিবেদন কার্যব্যবস্থা গ্রহণের জন্য শাখাওয়ারী প্রেরণ।

জেলা প্রশাসক এর সাথে সাক্ষাৎ গ্রহণে আগত নাগরিকদের সাক্ষাৎ ও কার্যব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াকরণ।


শাখার নামঃসার্বিক , সাধারণ
নাগরিক সেবা

                                                                           “সিটিজেন চার্টার”

                                                                            সাধারণ শাখা

                                                                 জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, চাঁদপুর।

1.       মাসিক জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা ও এনজিও সংক্রামত্ম সভার কার্যাবলী।

2.      বিভিন্ন সরকারি, আধা-সরকারী প্রতিষ্ঠান, ক্লাব, সংগঠন, ইত্যাদি সমুহের অনির্ধারিত সভার কার্যাবলী।

3.      জেলা পর্যায়ে অবস্থিত বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অফিস সমূহের সাথে সমন্বয় কার্যক্রম পরিচালনা।

4.       জেলা প্রশাসনের এখতিয়ার বর্হিভূত, সকল মন্ত্রণালয়/আধা-সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের বিভিন্ন সেবা মূলক

           দাপ্তরিক কাজ সম্পাদন।

5.      বিভিন্ন মসজিদ/মন্দির/ ব্যক্তি/সরকারী/বেসরকারী সংগঠন ক্লাব এর অনুকূলে সরকারী ভাবে মঞ্জুরীকৃত প্রাপ্ত অনুদানের অর্থ প্রদান সংক্রামত্ম 

          কার্যাবলী।

6.      মুক্তিযোদ্ধা সংক্রামত্মঃ

             (ক) মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই ও সংশোধনী (অভিযোগ) সংক্রান্ত কার্যাবলী।

             (খ) তালিকাভূক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট/তালিকাভূক্তিকরণ, সংশোধন কার্যাবলী।

            (গ) মুক্তিযোদ্ধাদের দাফন/কাফন এর সরকারী মঞ্জুরীকৃত টাকা ওয়ারিশদের প্রদান।

            (ঘ) মুক্তিযোদ্ধ ভবন কমপ্লেক্স/স্মৃতিফলক/ মুক্তিসৌধ ইত্যাদি কার্যাবলী।

 ৭.  জেলা হতে প্রকাশিত সকল সংবাদপত্র প্রকাশনা সংক্রামত্ম অনুমোদন/বাতিলসহ যাবতীয় তথ্যাবলী ও তদসংক্রামত্ম তথ্যাবলী   

      উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করণ।

৮.   সকল প্রিন্টিং প্রেস(ছাপাখানা) এর ডিক্লারেশন অনুমোদন ও বাতিলসহ যাবতীয় তথ্যাবলী উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিতকরণ।

৯.   সংবাদপত্র ডিক্লারেশন এর সার্বিক কার্যক্রম।

১০. ১৬ই ডিসেম্বর, ২১শে ফেব্রুয়ারী, ২৬শে মার্চ, ঈদুল আযহা, ঈদুল ফেতর, দূর্গাপূজা, বৌদ্ধ পুর্ণিমা, বড়দিন ও অন্যান্য  

     ধর্মীয় উৎসবাদি, সপ্তাহ, পক্ষ মেলা ইত্যাদিসহ অন্যন্য জাতীয় ও আমত্মর্জাতিক দিবস উদযাপন সংক্রামত্ম কার্যাবলী।

১১. জেলায় কর্মরত সকল এনজিওদের কার্যাবলীর সার্বিক তদারকি/পর্যবেক্ষন সংক্রামত্ম কাজ এবং তাদের কার্যাবলী তথ্যাদি

     মন্ত্রণালয় প্রেরণের কার্যাবলী।

১২. মানাবাধিকার সংক্রামত্ম অসহায় দুস্থ নির্যাতিত মহিলা, এসিড দগ্ধ মহিলা ও আওতাভূক্ত সকল  কার্যাবলীর সেবা প্রদান কাজ।

১৩. হজ্জ সংক্রামত্ম যাবতীয় কার্যক্রম হজ্জে গমনেচছুকদের আবেদন/ হজ্জব্রত পালন সংক্রামত্ম যাচাই- বাছাই ও হজ্জ সংক্রামত্ম   

     পরামর্শ ইত্যাদি সহ যাবতীয় কাজ।

১৪. উপজাতীয়/ নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠি(পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্যতিত) সংক্রামত্ম আদিবাসীদের সামাজিক উন্নয়নে  সরকারী অর্থ প্রদান ও

     অন্যন্য নীতি নির্ধারণী কার্যাবলী।

১৫. সরকারি/বেসরকারি শিক্ষা সংস্কৃতি/ খেলাধুলা ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা সংক্রামত্ম কার্যাবলী পর্যবেক্ষণ ও কর্তৃপক্ষ প্রতিনিধিত্ব  করার কার্যাবলী।

১৬. কেন্দ্রীয় পত্র প্রাপ্তি রেজিষ্টার সংরক্ষন এবং সকল শাখার চিঠিপত্র প্রেরণসহ ডাকটিকেট সংরক্ষন।

১৭. কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নির্দেশিত সময় সময় বিভিন্ন কার্যাবলীর সেবামূলক কাজ।

১৮. অবিবাহিত সনদপত্র প্রদান সংক্রামত্ম।

১৯. উপজাতীয় সনদপত্র প্রদান সংক্রামত্ম।

২০. প্রতিবন্ধি সংক্রামত্ম সার্বিক কার্যক্রম।

২১. কৃষি পুর্নবাসন কার্যক্রম।

২২. মান সম্মত শিক্ষা, জনসেবা এবং দুর্নীর্তি বিরোধী কর্মসূচী বাসত্মবায়ন সংক্রামত্ম।

২৩. স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সংক্রামত্ম সেমিনার আয়োজনক্রমে জনগনকে  উদ্বুদ্ধ করার সকল প্রকার কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়ে থাকে।

২৪. শিশু সদন ও মুখ বধির বিদ্যালয়ের তদারকি।

২৫. সিএস ডি/এলএস ডি খাদ্য গুদামের বার্ষিক প্রতিপাদনসহ শস্য ক্রয় সংক্রামত্ম বিষয়।

২৬. সরকারী কর্মচারী/কর্মচারীদের বাসা বরাদ্দ সংক্রামত্ম বিষয়াদি।

২৭. অডিট আপত্তি ও নিষ্পত্তির মাসিক/ষাম্মাষিক প্রতিবেদন সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ।

২৮. চাঁদপুর জেলার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্পসমূহ বাসত্মবায়নের অগ্রগতি সংক্রামত্ম

২৯. চাঁদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি হিসেবে মাননীয় জেলা প্রশাসকের দায়িত্ব পালন সংক্রামত্ম।

৩০. বর্তমান সরকারের দিন বদলের সনদ ভিশন-২১ এর সার্বিক কার্যক্রম গ্রহণ ও বাসত্মবায়ন।

৩১. জাতীয় পদক ও পুরষ্কার বিতরণ সংক্রামত্ম।

৩২. দক্ষ জনশক্তি ভিত গড়ে তোলার কার্যক্রম মানসম্মত শিক্ষা, জনসেবা এবং দুর্নীতি বিরোধী কর্মসূচী বাসত্মবায়ন মাসিক প্রতিবেদন।

৩৩. জাতীয় পুষ্টি ব্যাবস্থাপনা জেলা কামিটির সভাপতি হিসেবে মাননীয় জেলা প্রশাসকের দায়িত্ব পালন সংক্রামত্ম।

৩৪. বন ও পরিবেশ জেলা কমিটির সভাপতি হিসেবে মাননীয় জেলা প্রশাসকের দায়িত্ব পালন সংক্রামত্ম।

৩৫. খাদ্য বিভাগের ওএমএস কার্যক্রম পরিচালনা সংক্রামত্ম।


শাখার নামঃসার্বিক , এলএ
নাগরিক সেবা

অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণ বিতরণ:

১. অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণ গ্রহণের আবেদনের সাথে নিম্নলিখিত কাগজপত্র দাখিল করতে হয়।

        ক. আবেদনপত্র - ১টি,

        খ. সদ্যতোলা পসপোর্ট সাইজের এক কপি সত্যায়িত ছবি,

        গ. জতীয়তা সনদপত্র,

        ঘ. এস এ খতিয়ান,

        ঙ. বি এস খতিয়ান,

        চ. নামজারী ও কমাখারিজ এর খতিয়ান,

        ছ. বাংলা হাল সনের খাজনার দাখিলা,

        জ. ওয়ারিশ সনদ পত্র(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।

২. স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণের অধ্যাদেশ এর ৭(৩) ধারার বিধানমতে নির্ধারিত ফরমে ক্ষতিপূরনের আর্থ বিতরনণ কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন তা উল্লখ সহ এওয়ার্ড ভুক্ত ব্যক্তিকে তারিখ নির্ধারন করে নটিশ প্রদান করা হয়।

৩. ক্ষতিপূরন বিতরণে নিম্ন বর্ণিত পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়:

        ক. ক্ষতিপূরন টাকা এল এ চেক এর মাধ্যমে প্রাপকের নামে দেয়া হয় এবং পূর্বে অবহিত করে যথাসম্বব প্রকল্প এলাকায় চেক বিতরণ করা হয়।

        খ. এল এ চেক গ্রহণকারীকে ১৫০/- (একশত পঞ্চাশ) টাকার নন-জুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে অংগিকার নামা দিতে হয়(প্রযোজ্য ক্ষেত্রে )।

        গ. স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যন/সদস্য/ওয়ার্ড কমিশনার/ গণ্যমান্য ব্যক্তি কর্তৃক ক্ষতিপুরণ প্রাপককে সনাক্ত করতে হয়।

        ঘ. আবেদনকারী এওয়ার্ডভূক্ত মালিক ব্যাতিত অন্য কেহ ক্ষতিপুরনের টাকা দাবী করলে মালিকানা সাব্যস্তের লক্ষে মিস কেস রুজু করে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সদ্ধান্তের ভিত্তিতে উপর্যুক্ত মালিককে ক্ষতিপুরণ দেওয়া হয়।

        ঙ. কোন মালিক নির্ধারিত ক্ষতিপুরণে পর্যাপ্ততা সম্পর্কে সন্তুষ্ট না হলে আপত্তি সহকারে ক্ষতিপুরণ গ্রহণ করতে পারেন।

        চ. অধিগ্রহনর্কত জমির মালিকানা নিয়ে যদি কোন বরোধ বা বিজ্ঞ আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকে সেই ক্ষেত্রে ভূমির ক্ষতিপুরণ এর অর্থ প্রজাতন্ত্রের সরকারী হিসাবভুক্ত জমা হিসাব খাতে গচ্ছিত রাখা হয়।

        ছ. প্রাপ্য ক্ষতিপুরণ অপেক্ষা অধিক অর্থ কাহাকেও প্রদান করলে কিংবা সঠিক মালিক ব্যতিত অন্য কাহাকেও দেয়া হলে উক্ত অর্থ সরকারী দাবী হিসাবে আদায়যোগ্য হবে।

      

৪. অধীগ্রহণকৃত ভূমির মালিকানা কিংবা ক্ষতাপূরণ বিতরণে কোন আপত্তি পাওয়া গেলে উক্ত বিষয়ে এলএও কর্তৃক সিদ্ধান্ত প্রদান করা হয়।

 

সন্ধান জানিবার আবেদন

 

১. আবেদনকারী/আবেদনকারীগণ কোন এল এ নথীর সন্ধান জানতে চাইলে নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে।

২. আবেদন প্রাপ্তীর পর সংশ্লিষ্ট এল এ নথী যাচাই বাঁছাই করে আবেদনকারীর অনূকুলে নকল সরবরাহ করা হয়।


শাখার নামঃসার্বিক , ত্রাণ ও পুনর্বাসন
নাগরিক সেবা

১. গ্রামীন অবকাঠামো সংস্কার(কাবিখা),

২. গ্রামীন অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ(টিআর),

৩. দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা,

৪. অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচী/ ঝুঁকিহ্রাস/ ভিজিএফ/ সামাজিক নিরাপত্তা/ সেতু কালভার্ট/ রিফিউজী কলোনী

এছাড়াও এ শাখায় আগত বিভিন্ন শ্রণীর ও পেশার লোকের তাৎক্ষনিক সেবা দেওয়া হয়।


শাখার নামঃরেকর্ডরুম
নাগরিক সেবা

সেবার নাম

১। ছাপা খতিয়ান জরিপ খতিয়ান, তৌজি পট্টা, সম্প্িতত বন্টনের নকল, স্থায়ী অধিগ্রহন সম্পত্তির নকল

প্রয়াজনীয় নিয়মাবলী :

জরুরী প্রপ্তির ক্ষেত্রে ১৬/- মূল্যমানের কোট ফি  সহ আবদেন সাধারন ক্ষেত্রে 8/- মূল্যমানের কোর্ট ফি সহ আবদেন

প্রদানের  সময় সীমা :

জরুরী ক্ষেত্রে দরখাস্ত দাখিলের ০৩ দিন পর এবং সাধারন ক্ষেত্রে দরখাস্ত দাখিলের০৭ দিন পর।

 

অিভযোগ :

ভারপাপ্ত কর্মকর্তা রেকর্ড রুম শাখা

২। উপজেলা ভুমি অফিস থেকে চাহিত নামজারী মামলা , নামজারী পর্চা,

৩। পূর্ববর্তী সময়ে সম্পন্ন মামলা এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটর আদালতে নিষ্পন্ন মামলার নকল

 

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, চাঁদপুর

(রেকর্ডরম্নম শাখা)

 

সিটিজেন চার্টার

 

·     সকল প্রকার খতিয়ানের জাবেদা নকল সরবরাহ করা হয়।

 

·     সপ্তাহের প্রতি রবি, সোম, মঙ্গল ও বুধবার সকাল ৯.০০ টা হতে দুপুর ১২.০০টা পর্যমত্ম খতিয়ানের আবেদন গ্রহণ করা হয়। আবেদনের সাথে ২০/- মূল্যমানের কোট ফি সংযোজন করতে হয়।

 

·     আবেদন দাখিলের ০৪(চার) কর্মদিবসের মধ্যে খতিয়ান সরবরাহ সরবরাহ করা হয়।

 

·     সিআরপিসি সকল মামলার নকল সরবরাহ করা হয়।

 

·     সকল প্রকার মৌজা ম্যাপ (মজুদ সাপেÿÿ) গ্রাহকদের চাহিদা মোতাবেক আবেদন সাপেÿÿ সরবরাহ করা হয়।

 

·     প্রতিটি মৌজা ম্যাপের সরকারী মুল্য ৩৫০/-(তিনশত পঞ্চাশ) টাকা অর্থনৈতিক কোড নং-১-৪৬৩৭-০০০১-১২২১ খাতে চালানের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক, ট্রেজারী শাখায় জমা প্রদান পূর্বক  চালানের কপি প্রাপ্তি সাপেÿÿ ম্যাপ সরবরাহ করা হয়।


শাখার নামঃসার্বিক , আইসিটি শাখা
নাগরিক সেবা

সিটিজেন চার্টার(আইসিটি শাখা)

১। জেলা ই-সেবা সিস্টেম পরিচালনা

২। জাতীয় ই-সেবা সিস্টেম পরিচালনা

৩। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ল্যান বাস্তবায়ন

৪। জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নের ওয়েব পোর্টাল পরিচালনা

৫। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্থাপিত ভিডিও কনফারেন্স পরিচালনা।

৬। জেলা প্রশাসন ও অন্যান্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক আয়োজিত বিভিন্ন প্রকার প্রশিক্ষন পরিচালনায় সহায়তা।

৭। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কম্পিউটার এর কারিগরি ও সফটওয়্যারগত সমস্যা দূরীকরণ।

8। ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা আয়োজন।

9। জেলা ইনোভেশন টিমের কার্যক্রম পরিচালনা।

10। ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র(ইউ.আই.এস.সি) হতে ই-সেবা গ্রহণের জন্য জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধকরণ এবং ইউ.আই.এস.সি উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান।

11। DICTC  এবং UICTC এর মাধ্যমে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সরকারী/ স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হতে জনসাধারণকে ই-সেবা প্রদানের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান।

12। LAN নেটওয়ার্কিং এর মাধ্যমে এ কার্যালয়ের সকল শাখা হতে জনসাধারণকে ই-সেবা প্রদানে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান।

13। Front Desk এর মাধ্যমে জনসাধারেণকে One Stop Service প্রদান।

14। বিভিন্ন শাখার  ‘সিটিজেন চার্টার’ জনসাধারণকে অবহিতকরণ এবং জনসাধারণকে প্রয়োজনীয় সেবা প্রগণে সহায়তা প্রদান।

15। কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আই.সি.টি সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান।

16। আই.সি.টি সংশ্লিষ্ট সরকারী নির্দেশনা বাস্তবায়ন।

17। এ কার্যালয়ে এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন এবং পরিচালনায় প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান।


শাখার নামঃজেএম
নাগরিক সেবা

১। অডিট আপত্তি নিরসন সংক্রান্ত।

২। বিজ্ঞ সরকারী কেৌশুলীগণের সম্মানী ভাতা প্রেরণ সংক্রান্ত।

৩। হাজতী আসামীদের খোরাকী ভাতা/লাশ পরিবহন ভাতা সংক্রান্ত।

৪। চোরাচালান  বিরোধী অভিযান সংক্রান্ত অর্থ বরাদ্দ ।

৫। রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার সংক্রান্ত।

৬। জেলা ো দায়রা জজ হতে মামরার রায়ের কপি প্রেরণ।

৭। উচ্চ আদালতে মামলার নথি প্রেরণ সংক্রান্ত।

৮। ফেৌ: কা: বি: ১৪৪ ধারা জারী সংক্রান্ত।

৯। ইভটিজিং সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলী।

১০। দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল মামলা সংক্রান্ত।

১১।জেলা আইন-শৃংখলা সংক্রান্ত সভা, জেলা পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেসি সভা, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ  এবং প্রচারণা সভা, জেলা চোরাচালান নিরোধ  এবং টাস্কফোর্স সভা, জেলা নারী ো শিশু পাচার মামলা মনিটরিং সভা, জেলা মানব পাচার সংক্রান্ত সভা, নিষ্পত্তিযোগ্য চোরাচালান মামলা মনিটরিং কমিটির সভা।

১২।জেলাখানা সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম।

১৩। বিআরটিএ সংক্রান্ত যাবতীয় কাযর্ক্রম্

১৪। বিভিন্ন অভিযোগ সংক্রান্ত।

১৫। নোটারী পাবলিক রিেয়াগ সংক্রান্ত।

১৬। এফিডেভিট সংক্রান্ত কার্যক্রম।

১৭। বিভিন্ন আইন-শৃংখলা সংক্রান্ত মাসিক  প্রতিবেদন প্রেরণ।

১৮। আইন-শৃংখলা রক্ষায় যাবতীয ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ।

১৯।বিভিন্ন ধর্মীয় উৱসব এবং মেলার অনুমতি প্রদান।

২০। মোবাইল কোর্ট সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম।

২১। শিক্ষা সফর/ভ্রমণের অনুমতি।

২২। সুরতহাল রিপোর্ট এবং কবর হতে লাশ উত্তোলন সংক্রান্ত যাবতীয কার্যক্রম।

২৩। মহামান্য হাইকোর্ট সংক্রান্ত যাবতীয় কাযর্ক্রম।

২৪। আগ্নেয়াস্ত্র/এসিড/বিস্ফোরক দ্রব্যের লাইসেন্স প্রদান সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম।